1. adnantasinmonch@gmail.com : sahas24 : Ahsan Ullah
শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ১১:৩৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:

চট্টগ্রামে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে হত্যা

  • আপডেটের সময় সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৯০ জন দর্শন

বাসের মধ্যে ঝগড়ার জের ধরে এক হেলপার যাত্রীকে ফেলে দেওয়ায় বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ওই যাত্রী নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ সোমবার চট্টগ্রাম নগরের সিটি গেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নগরের গ্ল্যাস্কো অফিসের সামনে রেজাউল করিম ওরফে রনি (৩৫) নামের ওই যাত্রীকে ৪ নম্বর রুটের একটি বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়।

এই ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ লোকজন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিটি গেট এলাকা প্রায় এক ঘণ্টা অবরোধ করেন। পরে পুলিশ তাঁদের উঠিয়ে দেয়। ঘটনার পরপর চালক এবং হেলপার বাস রেখে পালিয়েছেন।

নিহত রেজাউল করিম সিটি গেট এলাকার মো. ওয়ালি উল্লাহর ছেলে। এর আগে গত ২১ জুলাই ঢাকায় যাওয়ার পথে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সাইদুর রহমান ওরফে পায়েলকে বাস থেকে ফেলে দেওয়া হয়। তাঁর বাড়িও চট্টগ্রামের হালিশহরে।

সংশ্লিষ্ট লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রেজাউল সকালে বাঁশবাড়িয়া যান। সেখানে থেকে ফিরতি পথে ভাটিয়ারি নামেন। রেজাউল করিম ৪ নম্বর বাসযোগে ভাটিয়ারি এলাকা থেকে সিটি গেট এলাকায় ফিরছিলেন।

সেখান থেকে তিনি বেলা ১টা ৩৫ মিনিটে এলাকার বড় ভাই জিল্লুর রহমানকে ফোন করে বলেন, বাসে তাঁর সঙ্গে পরিবহন শ্রমিকের ঝামেলা হচ্ছে। গ্ল্যাস্কো অফিসের পাশের বাসস্ট্যান্ডে তিনি যেন একটু থাকেন। এর পাঁচ মিনিট পর থেকে জিল্লুর ফিরতি ফোনে আর রেজাউলকে পাচ্ছিলেন না।

পরে অপর একজন ফোন ধরে জানান, রেজাউলকে গাড়ি চাপা দিয়েছে। হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে। পরে দুইটার দিকে হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

জিল্লুর রহমান বলেন, ‘তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়েছে। তার সঙ্গে ঝামেলা হচ্ছে, আমাকে জানিয়েছিল।’
জানা গেছে, রেজাউলকে ফেলে দেওয়ার পর বাসের ভেতরের যাত্রীরা বারবার গাড়ি থামাতে বলেন। কিন্তু চালক বাস টেনে নিয়ে যাচ্ছিলেন। একপর্যায়ে প্রায় ১০০ মিটার যাওয়ার পর সিটি গেটের কাছে বাস থামিয়ে চালক ও সহকারী পালিয়ে যান। কয়েকজন যাত্রী এবং স্থানীয় লোকজন ধাওয়া করেও তাঁদের ধরতে পারেননি।

আকবরশাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন বলেন, ‘তাঁকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আমরা গাড়ি জব্দ করেছি। এখন চালক এবং হেলপারকে খুঁজছি।’

সিটি গেট এলাকার কালীরহাটে রেজাউলদের বাড়ি। রেজাউলেরা এক ভাই, দুই বোন। বাবা-মা যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী। কোরবানির ঈদ করার জন্য দুজন দেশে আসেন। রেজাউল চার-পাঁচ বছর আগে দুবাই থেকে দেশে ফিরে ব্যবসা করতে থাকেন। গতকাল বিকেলে রেজাউলদের কালীরহাটের বাসায় দেখা যায় কান্নার রোল পড়েছে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে ভাগ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও খবর
© All rights reserved © 2020 Sahas24.com
Desing & Developed BY ServerNeed.com